আমাদের প্রত্যাশা

সময়ানুবর্তিতাঃ একাডেমি বিশ্বাস করে যে সময়ানুবর্তিতাই শৃঙ্খলা বদ্ধতার মূল। এবং প্রশিক্ষণার্থীর কাছ থেকেই এটাই আমাদের সর্বপ্রথম প্রত্যাশা এবং আমরা আশা করি প্রশিক্ষনার্থীরা আমাদেরকে এ ব্যপাওে পুনঃসর্তকরনের সুযোগ দেবেনা।

আচরনঃ আমরা আশা করি প্রশিক্ষনার্থীরা ব্যবহারে এবং সর্বোত্তম আচরনের অধিকারী হবে। আমরা প্রত্যাশা করি তারা একে অপরের প্রতি, কর্মচারীর প্রতি এবং অন্যদের প্রতি সদাচারী বিনয়ী মনোভাব এবং ভদ্রতা বজায় রাখবে।

অংশগ্রহনঃ আমরা চাই প্রশিক্ষনের সকল কার্যক্রম প্রশিক্ষনার্থীদের সকল বিষয়ে স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহন। সেই সাথে প্রত্যাশা করি তারা খুজে বের করবে কোথায় সমস্যাএবং কোথায় কি ভাবে আরো উন্নয়ন করা যেতেপারে।

শৃংখলা: শৃংখলা আপোষহীন। সরকারী কর্মকর্তা হিসাবে আমরা সকলেই একটি নির্দিষ্ট নিয়মনীতির এবং আচরন বিধিতে আবদ্ধ। আমরা চাই প্রশিক্ষনার্থীরা তাদের আচার আচরনে ভদ্রতা, নম্রতা সুশৃংখলা বজায় রাখুক। একজন সরকারী কর্মকর্তা হিসাবে নির্দিষ্ট নিয়মনীতির এবং আচরন বিধির সঠিক চর্চার মাধ্যমে তারা যেন তাদের কে উন্নতর মানুষ হিসাবে গড়ে তোলে।

পোষাক-পরিচ্ছদ: প্রশিক্ষনার্থীরা প্রতিটি অনুষ্ঠানে যথোপযুক্ত পোশাক পরিচ্ছদ সজ্জিত থাকবে। শ্রেণীকক্ষে পোশাক হবে সাধারন, মার্জিতএবংমর্যাদাপূর্ণ। পোশাক পরিধানের নিয়মনীতি একাডেমীর মূলভবনে ছাত্রাবাস, করিডোর, বারান্দা এবং গ্রন্থাগারের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য এবং দাপ্তরিক অনুষ্ঠানে নিয়মানুযায়ী নির্ধারিত পোশাক পরা উচিত।

পরিপক্কতা, সৃজনশীলতা এবং প্রচেষ্ঠা: আমরা আশা করি প্রশিক্ষনার্থীদের আচরন একজন বুঝদার বা পরিপক্ক মানুষের মত হবে । পরিপক্ক পারদর্শী ব্যক্তি মূলত একজন স্বয়ংসম্পূর্ন মানুষ সে যেকোন প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি সম্পদ সর্বোপরি আমরা প্রশিক্ষনার্থীর ক্রমাগত তার উন্নয়নের সিড়ি গুলো অতিক্রম করে নিজেকে সফলতার শীর্ষে নিয়েযাক আমরা প্রশিক্ষনার্থী কর্মকর্তারা মেধা মননে এই যোগ্যতা আশা করি ।

সকল একডেমী র্কোসে সর্বোত্তম প্রশিক্ষনার্থী কে মহাপরিচালক মেডেল ও সম্মাননা প্রদান করা হবে।